ফেনী জেলা| ট্র্যাভেল নিউজ বাংলাদেশ

945

ফেনী জেলা বাংলাদেশের একটি জেলা। এটি চট্টগ্রাম বিভাগ এর অন্তর্গত। ১৯৮৪ সালে ফেনী জেলা প্রতিষ্ঠিত হয়। জেলাটির আয়তন ৯২৮.৩৪ বর্গ কিলোমিটার। ১৯৮৪ সালের পূর্বে এটি নোয়াখালী জেলার একটি মহকুমা ছিল। এ জেলায় বর্তমানে ছয়টি উপজেলা ও পাঁচটি পৌরসভা রয়েছে। ফেনী জেলার উত্তরে কুমিল্লা জেলা ও ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য, দক্ষিণে নোয়াখালী, চট্টগ্রাম জেলা ও বঙ্গোপসাগরের মোহনা,পূর্বে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্য এবং পশ্চিমে নোয়াখালী জেলা ।

নামকরনের ইতিহাস:-

ফেনী নদীর নাম অনুসারে এ অঞ্চলের নাম রাখা হয় ফেনী। মধ্যযুগে কবি ও সাহিত্যিকদের কবিতা ওসাহিত্যে একটি বিশেষ নদীর স্রোদধা ও ফেনী পরাপারের ঘাট হিসেবে আমরা ফনী শব্দটি পাই। ষোড়শ শতাব্দীতে কবি কবীন্দ্র পরমেশ্বর পরাগল পুরের বর্ণনায় লিখেছেন, ‘ফনী নদীতে বেষ্টিত চারিধার, পূর্বে মহাগিরি পার পাই তার’। সতের শতকে মির্জা নাথানের ফার্সী ভাষায় রচিত ‘বাহরিস্থান-ই-গায়েরীতে’ফনী শব্দ ফেনীতে পরিণত হয়। আটারো শতকের ষেষ ভাগে কবি আলী রেজা প্রকাশ কানু ফকির তাঁরপীরের বসতি হাজী গাঁওয়ের অবস্থান সম্পর্কে বর্ণনা দিতে গিয়ে লিখেছেন, ‘ফেনীর দক্ষিণে এক বর উপাম,হাজীগাঁও করিছিল সেই দেশের নাম’। মোহাম্মদ মুকিম তাঁর পৈতৃক বসতির বর্ণনা কালে বলেছেন,”ফেনীর পশ্চিমভঅগে জুগিদিয়া দেশ। বলাবাহুল্য তাঁরাও নদী অর্থে ফেনী শব্দ ব্যবহার করেছেন। মুসলমান কবি-সাহিত্যিকদের ভাষায় আদি শব্দ ‘ফনী’ ফেনীতে পরিণত হয়েছে।

অবস্থান ও সীমানা:-

রাজধানী ঢাকা থেকে এ জেলার দূরত্ব প্রায় ১৬১ কিলোমিটার এবং চট্টগ্রাম বিভাগীয় সদর থেকে প্রায় ৯৭ কিলোমিটার। এ জেলার পশ্চিমে নোয়াখালী জেলার সেনবাগ এবং কোম্পানিগঞ্জ, উত্তরে কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম ও ভারতের ত্রিপুরা প্রদেশ, পূর্বে ভারতের ত্রিপুরা প্রদেশ ও চট্টগ্রাম জেলার মিরসরাই, দক্ষিণ-পূর্বে চট্টগ্রাম জেলা এবং দক্ষিণে বঙ্গোপসাগর অবস্থিত। ফেনী জেলার মোট আয়তন ৯২৮.৩৪ বর্গ কিলোমিটার।

ফেনী জেলায় মোট ৬টি উপজেলা

০১ ছাগলনাইয়া

০২ দাগনভূঁইয়া

০৩ পরশুরাম

০৪ ফুলগাজী

০৫ ফেনী সদর

০৬ সোনাগাজী

কৃতী ব্যক্তিত্ব:-

আনোয়ারউল্লাহ চৌধুরী –– ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর প্রাক্তন উপাচার্য।

আবদুল আউয়াল মিন্টু –– এফবিসিসিআই এর সাবেক প্রেসিডেন্ট এবং ভাইস চেয়ারম্যান বিএনপি।

আবদুস সালাম –– ভাষা শহীদ।

আবদুস সালাম –– বাংলাদেশ প্রেস ইন্সটিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রথম মহাপরিচালক।

আবুল কালাম আজাদ চৌধুরী –– বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি)’র প্রাক্তন চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা।

আমীন আহম্মেদ চৌধুরী –– বীর বিক্রম খেতাব প্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা।

আহমেদ ফজলুর রহমান –– ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বাঙালি উপাচার্য।

ইকবাল সোবহান চৌধুরী –– সাংবাদিক নেতা ও প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা।

ইনামুল হক –– অভিনেতা, লেখক ও নাট্যকার।

এ বি এম মূসা –– সাংবাদিক।

ওয়াসফিয়া নাজরীন –– পর্বতারোহী, এভারেস্ট বিজয়ী দ্বিতীয় বাঙালি নারী।

কাইয়ুম চৌধুরী –– চিত্রশিল্পী।

খান বাহাদুর আবদুল আজিজ –– শিক্ষাবিদ, লেখক ও সমাজকর্মী।

খালেদা জিয়া –– রাজনীতিবিদ, বাংলাদেশের প্রথম মহিলা প্রধানমন্ত্রী।

গাজীউল হক –– সাহিত্যিক, গীতিকার এবং ভাষাসৈনিক।

গিয়াস উদ্দিন সেলিম –– নাট্যকার, নাট্যনির্মাতা ও চলচ্চিত্রকার।

গিয়াস কামাল চৌধুরী –– সাংবাদিক, কলামিস্ট ও সংবাদ বিশ্লেষক।

বিখ্যাত খাবার:-

মহিশের দুধের ঘি

সেগুন কাঠ

খন্ডলের মিষ্টি

বিখ্যাত স্থান:-

পাগলা মিয়ার মাজার

সোনাগাজী মুহুরি সেচ প্রকল্প

শিলুয়ার শীল পাথর

রাজাঝির দীঘি

মোহাম্মদ আলী চৌধুরী মসজিদ ও বাসভবন

চাঁদগাজী মসজিদ

মহিপালের বিজয় সিংহ দীঘি

সাত মন্দির

জগন্নাথ কালি মন্দির

কিভাবে যাবেন:-

স্থল পথে

ফেনী জেলায় সাধারনত সড়ক পথেই ভ্রমণ করা হয়ে থাকে। ঢাকার সায়েদাবাদ জনপথের মোড় থেকে প্রতিদিন প্রতিদিন সকাল ৬ টা থেকে ১ ঘন্টা পর পর ফেনীর উদ্দ্যেশে বাস ছেড়ে যায়। এদের মধ্যে ড্রীম লাইন, সেবা চেয়ার কোচ, স্টার লাইন অন্যতম। এ ছাড়াও চট্টগ্রাম গামী লোকাল বাস গুলোতে ফেনী যেতে পারবেন। ঢাকা থেকে ফেনীর ভাড়া নিতে পারে ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা

রেলপথ

চট্টগ্রামগামী সব ট্রেনই ফেনী যাত্রা বিরতি দিয়ে যায়। মহানগর গোধুলী, তূর্ণা, কর্ণফুলী, ঢাকা মেইল(কমিউটার) এই রুটে চলাচলকারী ট্রেন গুলোর মধ্যে অন্যতম।