খান মোহাম্মদ মৃধা মসজিদ|

494

রাজধানীর প্রাচীন মসজিদগুলোর সৌন্দর্য অবর্ণনীয়। একটি মসজিদের সৌন্দর্য যেন আরেকটি মসজিদকে হার মানিয়ে দিতে চাইছে। কিন্তু একেকটি মসজিদ তাদের নিজেস্ব সৌন্দর্য ও আভিজাত্য বজায় রেখেছে। যে মসজিদেই যাবেন স্থাপত্যশিল্পের নান্দনিকতা আপনার চোখ আটকে যেতে বাধ্য। একটি দেখে আরেকটি দেখার তৃষ্ণা কিছুতেই মিটবে না। তেমনি আরেকটি মসজিদ হলো খান মোহাম্মদ মৃধা মসজিদ। লাল ইট আর চুনাপাথরের মিশ্রনে স্থাপনাটির রঙ অনেকটা পোড়া মাটির মত। রঙের দিক থেকে কেউ কেউ আবার মিল খুঁজতে পারেন দিল্লীর লালকেল্লার সঙ্গেও। প্লাটফর্মের সিঁড়ি বেয়ে ওপরে উঠতেই চোখ ভরে যাবে অভিজাত মুঘল স্থাপত্যশৈলীর অন্যতম নিদর্শন তিলোত্তমা এ মসজিদটি দেখে। প্রায় সোয়া তিনশ’ বছর বয়স হলেও জৌলুস কমেনি এতটুকু। চারপাশের ঘিঞ্জি এলাকার মধ্যে এ মসজিদ আজও যেন সাক্ষ্য বহন করে চলেছে মুঘল নির্মাণশৈলীক আভিজাত্যের।

ইতিহাসবিদ অধ্যাপক মুনতাসির মামুন এবং বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশনের ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী: ১৭০৪-৫ সালে ঢাকার প্রধান কাজী, কাজী খান মোহাম্মদ এবাদউল্লাহ নির্দেশে খান মোহাম্মাদ মৃধা এই মসজিদটি নির্মাণ করেছিলেন। প্রায় ১৭ ফুট উচুঁ প্লাটফর্মের উপর বানানো হয়েছিল তিন গম্বুজ এই মসজিদটি। নামাজ ঘরের উত্তর-পূর্ব দিকে রয়েছে মাদ্রাসা। মসজিদ আর মাদ্রাসা ছাড়া বাকি অংশ একদমই উন্মুক্ত। ধারণা করা হয় এখানেই শিক্ষার্থীদের পাঠদান করা হতো। আর নীচের ঘরগুলো ছিল থাকার জায়গা।

পুরো মসজিদ চত্বরটি বেশ জায়গা জুড়ে। সঠিক পরিমাণ কোথাও উল্লেখ না থাকলেও স্থানীয়রা জানান: চত্বরটি কয়েক একর হবে। প্লাটফর্মের ঠিক মাঝামাঝি মূল মসজিদের অবস্থান। কিন্তু মসজিদের চারপাশ জুড়ে অনেক খোলা জায়গা। মুসল্লীদের চাপ থাকলে সেখানে চাটাই বিছিয়ে নামাজ আদায়ের ব্যবস্থা আছে। কিন্তু জুমার দিনে মূল মসজিদ, এর চারপাশটা ভরেও জায়গা হয় না অনেক মুসল্লীর। তাই বাইরের প্লাটফর্মের নিচের খোলা জায়গা, অজু খানার সামনের প্রান্তর ভরে সামনের সড়কে দাঁড়িয়েও অনেকে নামাজ আদায় করেন বলে জানালেন মসজিদের মুয়াজ্জিন ও খাদেম মো. জসীম উদদীন।

কিভাবে যাবেন:-

দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে মসজিদটি দেখতে চাইলে প্রথমে আপনাকে রাজধানীতে আসতে হবে। এরপর লোকাল বাসে আজিমপুর বাসষ্ট্যান্ড, শাহবাগ কিংবা গুলিস্তান এলাকায় নামতে হবে। এরপর রিক্সাযোগে অথবা হেটে আসতে হবে লালবাগ কেল্লা। দর্শনাথী ইচ্ছা করলে পায়ে হেঁটেও লালবাগে যেতে পারেন। ঢাকার সদরঘাট লঞ্চটার্মিনাল থেকে বাবু বাজার হয়ে লালবাগে যাওয়া যায়। লালবাগ কেল্লার মূল ফটক থেকে রহমত উল্লাহ বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের অতিক্রম করেই দেখা মিলবে দৃষ্টিনন্দন দোতলা মসজিদটির। আর এটাই হলো খান মোহাম্মদ মৃধা মসজিদ। চাইলে আপনিও একবার এই ঐতিহ্যবাহী মসজিদটি দেখে আসতে পারেন।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here