চায়না ইস্টার্ন সম্পর্কিত তথ্য এবং ঢাকা, বাংলাদেশ বিক্রয় অফিসের ঠিকানা

0
772

১৯৫৭ সালের জানুয়ারী মাসে চীনের সাংহাইয়ের চায়না সরকারের বিমান নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা (CAAC)হাত ধরে চায়না ইস্টার্ন কোম্পানি যাত্রা শুরু করে।যা পরবর্তীতে চিনের প্রধান তিনটি বিমান পরিবহণ সংস্থা একত্রীত হয়ে চায়না ইস্টার্ন এয়ারলাইন্স হোল্ডিং কোম্পানি নামে বৃহৎ প্রতিষ্ঠানের রুপ পায়।এর সদর দপ্তর চিনের সাংহাই প্রদেশে অবস্থিত।ক্রমাগত নতুন নতুন কাঠামোগত সমন্বয়,পরিবর্তন,পরিমার্জন ও বিভিন্ন নতুন সংস্থার একীকরণের মাধ্যমে চায়না ইস্টার্ন এয়ারলাইন্স একটি বিমান শিল্প সংস্থায় পরিণত হয়েছে।যা বর্তমানে তাদের যাত্রীদের একটি সমন্বিত পরিষেবা কার্যক্রমের আওতায় এনে বিমান পরিবহন সেবা ও অল্প মূল্যে ব্যবসায় সংক্রান্ত সেবা প্রদান করে।এসব ছাড়াও  উপর বিমান সংস্থার সাথে সম্পর্কিত আবাসন ব্যবসা, অর্থনৈতিক বিনিয়োগ,বিজ্ঞাপন,খাবার সরবরাহ,দক্ষ বিমান চালক তৈরি সহ অনেক খাতে বিনিয়ক এর মাধ্যমে ব্যবসার বিস্তৃত করে চলেছে।

চায়না ইস্টার্ন এর সদর দপ্তর চিনের সাংহাই প্রদেশে অবস্থিত।দুই সংখ্যার (IATA) কোড MU। চায়না ইস্টার্ন কোম্পানি আন্তর্জাতিক এবং তাদের দেশীয় বা অভ্যন্তরীণ বিমানবন্দর গুলোতে যাত্রী পরিবহন করে।এটি যাত্রী সংখ্যার বিচারে চীনের দ্বিতীয় বৃহত্তম যাত্রীবাহী বিমান সংস্থা।এটি ২৫জুন, ১৯৮৮ সালে বাণিজ্যিক ভাবে যাত্রা শুরু করে এবং চীনের সাংহাই হংকুইয়া আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর যাত্রী পরিবহন শুরু করে।চায়না ইস্টার্ন সারা বিশ্ব জুড়ে ২১৭ টি আলাদা আলাদা স্থানে আকাশ পথে যাত্রী পরিবহন সুবিধা দিয়ে থাকে।নিউইয়র্কে এদের যাত্রাবিরতি ব্যাতিত দীর্ঘতম বিমান পরিবহন সেবা পরিচালিত হয়।তারা তাদের অভ্যন্তরীণ এবং আন্তর্জাতিক উভয় ক্ষেত্রেই উন্নত যাত্রী সেবা প্রদানকারী সংস্থা হিসাবে সাধারন যাত্রীদের নিকট খুব জনপ্রিয়। এশিয়া, উত্তর আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়াতে চায়না ইস্টার্ন কোম্পানির বিপুল পরিমানে যাত্রীদের নিকট গ্রহন যোগ্যতা রয়েছে। মূলত ২০০৯ সাল থেকে চায়না ইস্টার্ন কোম্পানির সুনাম ব্যাপকভাবে বাড়তে থাকে এবং এরা চায়না সরকারের বিমান নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা (CAAC) কর্তৃক চীনের সরবচ্চ যাত্রী নিরাপত্তা সম্মাননা পদক পায়।চায়না সরকারের বিমান নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা (CAAC) কে বৃহত্তর চীনের ২৫টি সর্বাধিক উদ্ভাবনী কোম্পানির একটি  শিরোনামের ভূমিকায় ভূষিত করা হয় এবং এটি বিশ্ব সংস্থা ফরচুনের বেসরকারী সামাজিক দায়বদ্ধতার শীর্ষক প্রধান ১০টি সংস্থার মধ্যে স্থান পায়। এটি WPP সংস্থার গবেষণায় ৩০ টি মূল্যবান চীনা ব্র্যান্ডগুলির মধ্যে একটি হিসাবে স্বীকৃতি লাভ এবং SOE মধ্যে ROE এর সাথে যৌথ ভাবে শীর্ষে রয়েছে।

চায়না ইস্টার্ন বিমার সংস্থা তাদের কর্মী সন্তুষ্টি, গ্রাহকদের বিশ্বাস অর্জন,বিনিয়োগকারী দের আস্থা অর্জন,সাধারন যাত্রীদের নির্ভুল, সূক্ষ্ম এবং সুনির্দিষ্ট পরিষেবা প্রদানের মাধ্যমে আস্থা অর্জন,সঠিক অর্থনৈতিক সেবা প্রদান করার মধ্য দিয়ে নিজেদের একটি আকর্ষণীয় ও গ্রহন জজ্ঞ বিমান সংস্থা হিসাবে গড়ে তুলতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

বাংলাদেশের বাজারে চায়না ইস্টার্ন এয়ারলাইন্স এর টিকিট বিক্রি করে অনেক ট্র্যাভেল এজেন্ট রয়েছে। তবে সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য অনুমোদিত বিক্রয় এজেন্টগুলির একটি এয়ারওয়েজ অফিস বা জু ইনফোটেক (বাংলাদেশে শীর্ষস্থানীয় ট্র্যাভেল এজেন্ট) যারা বিমান শিল্প ও ভ্রমণ সংশ্লিষ্ট প্রযুক্তি গত দিক নিয়ে কাজ করে। সর্বোচ্চ সস্তা মূল্যে বিমানের টিকেট এবং অন্যান্য পরিষেবা পেতে যোগাযোগ করুন।

ঢাকাস্থ চায়না ইস্টার্ন এয়ারলাইন্স এর বিক্রয় প্রতিনিধির অফিসে যোগাযোগের ঠিকানা

এয়ারওয়েজ অফিস
রোড ৩, হোল্ডিং ৩, সুইট ৩৪,
হ্যাপি আর্কেড শপিং মল,
ধানমণ্ডি,ঢাকা ১২০৫, বাংলাদেশ।
মোবাইল নাম্বার: ০১৯৭৮৫৬৯২৯৪– ৯৫-৯৬
অফিসিয়াল ওয়েবসাইটঃ http://chinaeastern.com.bd/
সকাল ১০.৩০ টা থেকে রাত ৮.৩০টা পর্যন্ত(সপ্তাহে ৭ দিন খোলা)

এয়ারওয়েজ অফিসের গুগল ম্যাপ লোকেশন –

 

এয়ারওয়েজ অফিসের ফেসবুক পেজ –

চায়না ইস্টার্ন এয়ারলাইন্স এর কর্পোরেট অফিসে যোগাযোগের ঠিকানাঃ

বিলকিস টাওয়ার।
৭ম  তলা,প্লট -৬, ২য় সার্কেল
গুলশান, ঢাকা -১২১২ বাংলাদেশ
টেলিফোন নাম্বার: +৮৮-০২-৮৮১৯৪৮১ ,+৮৮-০২-৮৮১৯৪৮৬।
অফিসের সময়সূচি:
রবিবার-বৃহস্পতিবারঃ সকাল ০৯:০০টা থেকে বিকাল ০৫:০০টা
শনিবার:সকাল ০৯:০০টা থেকে দুপুর ০২:০০টা

ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিমান সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য জানার উপায়:

যাত্রীদের ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিমান সম্পর্কিত তথ্য জানার প্রক্রিয়াকে বলে অনলাইন চেক-ইন। এটি এমন প্রক্রিয়া যেখানে যাত্রীরা ইন্টারনেটের মাধ্যমে তাদের ফ্লাইটে উপস্তিথির তথ্য নিশ্চিত এবং তাদের নিজস্ব বোর্ডিং পাসগুলি মুদ্রণ করতে পারেন।ক্যারিয়ার এবং নির্দিষ্ট ফ্লাইটের ধরনের উপর নির্ভর করে যাত্রীরা তাদের পছন্দের খাবার এবং খাবারের বিকল্প ও মালপত্রের পরিমাণের তথ্য নিশ্চিত করতে পারেন । তাছাড়া যাত্রীরা উক্ত পক্রিয়ার মাধ্যমে তাদের পছন্দের আসন পূর্বেই নির্বাচন করতে পারে।
#অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট এর ক্ষেত্রে প্রস্থানের নির্ধারিত সময় থেকে  ১ কিংবা ১ঃ৩০ ঘন্টা আগে চেক-ইন করতে হয়।
#যাত্রীরা তাদের ই-বোর্ডিং পাস চেক ইন এর জন্য মোবাইল ওয়েবসাইট বা মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করতে পারেন।
# যে সকল যাত্রী অনলাইনে চেক ইন করবে তাদের নিজ উদ্যোগে তাদের বোর্ডিং পাস মুদ্রণ এবং তাদের বিমানবন্দর থেকে বোর্ডিং পাসের জন্য একটি ভাউচার বাধ্যতামূলক গ্রহন করতে হবে

রিজার্ভেশন সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্যঃ

ফ্লাইটে উঠার আগে অবশ্যই আপনার বিমানের টিকিটটি পরীক্ষা করুন এবং ভালভাবে নিশ্চিত হন। আপনি যদি আপনার রিজার্ভেশন সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য দেখতে চান তাহলে রিজার্ভেশন থেকে, আপনার রিজার্ভেশন রেফারেন্স বা পিএনআর নাম্বার টি এবং আপনার নামের শেষ অংশটি লিখুন।উক্ত তথ্য গুলো লিখার পর রিজার্ভেশন থেকে আপনি আপনার সকল তথ্য জমা দেখতে পারবেন।
আপনি ফ্লাইট পরিবর্তন করতে চাইলে আপনার বুকিং রেফারেন্স নাম্বার এবং আপনার নামের শেষ অংশটি লিখুন। এরপর আপনার বুকমার্ক এ আপনার নামের অংশটুকু একইরকম কিনা সেটা নিশ্চিত করুন।

চায়না ইস্টার্ন এয়ারলাইন্সের ঢাকা অফিসের ঠিকানা বা ফোন নাম্বারে সংক্রান্ত যে কোনও সমস্যা / অভিযোগ নীচে কমেন্ট করে জানাতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here