জয়পুরহাট জেলার লকমা রাজবাড়ি।

820

জয়পুরহাট জেলার ২২ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিম দিকে পাঁচবিবি উপজেলার কড়িয়া গ্রামে ভারত সীমান্তবর্তী ঐতিহাসিক লকমা রাজবাড়ি অবস্থিত। জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার লকমা ও ভারতের দক্ষিন দিনাজপুর সীমান্ত ঘেষাঁ জমিদার বাড়িটি অনেকের মতে রাজা লক্ষণসেন নির্মান করেছেন। আমার অনেকে বলেন জৈনিক চৌধুরী হাদি মামুন এই বাড়িটির নির্মাতা ।

লকমা চৌধুরীর পরনাতীর কাছ থেকে জানা যায়, প্রায় ২০০-৩০০ বছর পূর্বে  বাড়িটি নিমার্ণ হয়  এবং বর্তমানে এখানে প্রায় ১৫ বিঘা জমি আছে । এই সকল জমিতে বিভিন্ন শস্য উৎপাদনের পাশাপাশি ফল ও ফুলের বাগান দেখা যায়। স্থানীয় লোকজনের মতে, দালান দুটির একটি ঘোড়াশাল এবং অপরটি হাতীশাল ছিল ।

তার একটু সামনে মাটির একটি ঢিবি রয়েছে, সেখানে  ইউ আকৃতির বহু পুরাতন দ্বিতল ভবনের অবস্থান । ভবনের কিছুটা অংশ মাটির নীচে ডেবে গেছে বলে জনশ্রুতি আছে। লকমা চৌধুরীর বাড়ীর পূর্ব পার্শ্বে কর্মচারীর ঘর ও কবরস্থান রয়েছে। সংস্কারের অভাবে বর্তমানে রাজবাড়ীটি ধ্বংস হতে চলেছে । এখনও প্রতিদিন অনেক লোক স্বচক্ষে রাজবাড়ীঢি দেখার জন্য আসেন।

যেভাবে যাবেনঃ-

ঢাকা থেকে সরাসরি বাস কিংবা ট্রেইনে চেপে সরাসরি জয়পুরহাট জেলা  শহরে পৌঁছানো যায়। ঢাকার গাবতলি,সায়দাবাদ,মহাখালি বাস টার্মিনাল গুলো থেকে বাস পাওয়া যায়।কমলাপুর স্টেশন থেকে ট্রেইন যাত্রা শুরু হয়। হয়।জয়পুরহাট জেলা  শহর থেকে রিক্সা কিংবা সি এন জি করে লকমা রাজবাড়ি যাওয়া যায়।