হিমালয়া এয়ারলাইন্স সম্পর্কিত তথ্য এবং ঢাকা, বাংলাদেশ বিক্রয় অফিসের ঠিকানা

0
743

ত্রিভূবন এয়ারপোর্ট থেকে পরিচালিত হিমালয়া এয়ারলাইন্স একটি নেপালি এয়ারলাইন্স কোম্পানি যারা ২০১৪ সালে যাত্রা শুরু করে। ২০১৬ সাল থেকে একটি এয়ারবাস এ৩২০ দিয়ে তাঁরা ফ্লাইট পরিচালনা করা শুরু করে। ডিসেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত হিমালয়া এয়ারলাইন্স ৯টি গন্তব্যে ফ্লাইট পরিচালনা করে আসছে।

বাংলাদেশে অনেক ট্রাভেল এজেন্সি আছে যারা হিমালয়া এয়ারলাইন্সের টিকেট বিক্রয় করে থাকে। অনুমোদিত এবং নির্ভরযোগ্য এজেন্সি সমূহের মধ্যে এয়ারওয়েজ অফিস বা জু ইনফোটেক অন্যতম। ট্রাভেলজু দীর্ঘদিন থেকে সফলতার সাথে সকল এয়ারলাইন্সের টিকেট বিক্রয় করে আসছে।

হিমালয়া এয়ারলাইন্স ব্যাগেজ অ্যালাওয়েন্স

  • বিজনেস ক্লাস ৪০ কেজি (৮৮ পাউন্ড)
  • ইকনোমি ক্লাস ৩০ কেজি (৬৬ পাউন্ড)

হিমালয়া এয়ারলাইন্সের গ্রাহকের জন্য নির্ধারিত পরিষেবা গুলো:

১) বিমানের টিকেট বুকিং
২) টিকিট বাতিলকরণ,
৩) টিকিটের সময় পরিবর্তন
৪) ভিসা সম্পর্কিত সেবা
৫) অনলাইন চেক ইন
৬) মালপত্র সম্পর্কিত তথ্য
৭) বিমানের তথ্য
৮) বিমানবন্দর সুবিধা সম্পর্কিত তথ্য
৯) বিমানের অভ্যন্তরীণ খবার ব্যবস্থা সম্পর্কিত তথ্য ইন
১০) মালপত্রের নিরপত্তা সম্পর্কিত তথ্য
১১) বহির্গমন সেবা সম্পর্কিত তথ্য
১২) বিমানের অভ্যন্তরীণ বিনোদন সম্পর্কিত তথ্য
১৩) বিমানের বিলম্ব জনিত সমস্যার সমাধান। ইত্যাদি

ঢাকাস্থ হিমালয়া এয়ারলাইন্সের বিক্রয় প্রতিনিধির অফিসে যোগাযোগের ঠিকানা

এয়ারওয়েজ অফিস
রোড ৩, হোল্ডিং ৩, সুইট ৩৪,
হ্যাপি আর্কদিয়া শপিং মল,
ধানমণ্ডি,ঢাকা ১২০৫, বাংলাদেশ।
মোবাইল নাম্বার: ০১৯৭৮৫৬৯২৯৪– ৯৫-৯৬
ইমেইলঃ airwaysoffice@gmail.com
সকাল ১০.৩০ টা থেকে রাত ৮.৩০টা পর্যন্ত(সপ্তাহে ৭ দিন খোলা)

হিমালয়া এয়ারলাইন্স সম্পর্কিত ওয়েবসাইট –  http://himalaya-airlines.com.bd/, http://himalayaairlines.com.bd/, himalayaairlinesoffice.com, himalayaairlinesdhaka.com, himalayaairlinesdhakaoffice.com


বিমানের যাত্রীদের খাবার সম্পর্কিত তথ্যঃ

প্রতিটি বাণিজ্যিক বিমানের বিনা মূল্যে যাত্রীদের খাবার পরিবেশন করা হয়। এই খাবার বিশেষজ্ঞ এয়ারলাইন ক্যাটারিংদের দ্বারা প্রস্তুত করা হয় এবং সাধারণত বিমানের ভেতর সার্ভিস ট্রলি ব্যবহার করে যাত্রীদের কাছে পৌছানো হয়। কম খরচে বিমান পরিষেবা প্রদানকারী বিমান গুলতে যাত্রীদের কোন ধরনের খাবার সরবরাহ করা হায় না। তবে আপনি চাইলে ফ্লাইট থেকে খাবার কিনতে পারেন।বিমানের ভেতর যাত্রীসেবা সমূহ আরও সুবিধাজনক এবং সুনিশ্চিত করার জন্য যাত্রীদের বিভিন্ন সেবার নাম সম্বলিত প্রাক বই সরবরাহ করা হয়।

ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিমান সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য জানার উপায়:

যাত্রীদের ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিমান সম্পর্কিত তথ্য জানার প্রক্রিয়াকে বলে অনলাইন চেক-ইন। এটি এমন প্রক্রিয়া যেখানে যাত্রীরা ইন্টারনেটের মাধ্যমে তাদের ফ্লাইটে উপস্তিথির তথ্য নিশ্চিত এবং তাদের নিজস্ব বোর্ডিং পাসগুলি মুদ্রণ করতে পারেন।ক্যারিয়ার এবং নির্দিষ্ট ফ্লাইটের ধরনের উপর নির্ভর করে যাত্রীরা তাদের পছন্দের খাবার এবং খাবারের বিকল্প ও মালপত্রের পরিমাণের তথ্য নিশ্চিত করতে পারেন । তাছাড়া যাত্রীরা উক্ত পক্রিয়ার মাধ্যমে তাদের পছন্দের আসন পূর্বেই নির্বাচন করতে পারে।
#অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট এর ক্ষেত্রে প্রস্থানের নির্ধারিত সময় থেকে  ১ কিংবা ১ঃ৩০ ঘন্টা আগে চেক-ইন করতে হয়।
#যাত্রীরা তাদের ই-বোর্ডিং পাস চেক ইন এর জন্য মোবাইল ওয়েবসাইট বা মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করতে পারেন।
# যে সকল যাত্রী অনলাইনে চেক ইন করবে তাদের নিজ উদ্যোগে তাদের বোর্ডিং পাস মুদ্রণ এবং তাদের বিমানবন্দর থেকে বোর্ডিং পাসের জন্য একটি ভাউচার বাধ্যতামূলক গ্রহন করতে হবে

রিজার্ভেশন সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্যঃ

ফ্লাইটে উঠার আগে অবশ্যই আপনার বিমানের টিকিটটি পরীক্ষা করুন এবং ভালভাবে নিশ্চিত হন। আপনি যদি আপনার রিজার্ভেশন সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য দেখতে চান তাহলে রিজার্ভেশন থেকে, আপনার রিজার্ভেশন রেফারেন্স বা পিএনআর নাম্বার টি এবং আপনার নামের শেষ অংশটি লিখুন।উক্ত তথ্য গুলো লিখার পর রিজার্ভেশন থেকে আপনি আপনার সকল তথ্য জমা দেখতে পারবেন।
আপনি ফ্লাইট পরিবর্তন করতে চাইলে আপনার বুকিং রেফারেন্স নাম্বার এবং আপনার নামের শেষ অংশটি লিখুন। এরপর আপনার বুকমার্ক এ আপনার নামের অংশটুকু একইরকম কিনা সেটা নিশ্চিত করুন।

 

হিমালয়া এয়ারলাইন্সের ঢাকা অফিসের ঠিকানা বা ফোন নাম্বারে সংক্রান্ত যে কোনও সমস্যা / অভিযোগ নীচে কমেন্ট করে জানাতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here