বি আর টি সি বাস সার্ভিস| ট্র্যাভেল নিউজ বাংলাদেশ

4098

বি আর টি সি বাস সার্ভিস একটি সরকারী পরিবহন ব্যবস্থা। এই বাস সার্ভিসের ধরণগুলো হলো যথাক্রমে সিটি সার্ভিস, স্কুল সার্ভিস, আন্তনগর সার্ভিস, স্টাফ বাস সার্ভিস এবং আন্তর্জাতিক বাস সার্ভিস। বিআরটিসি বাসগুলো সাধারনত দ্বিতল বিশিষ্ট, একতল বিশি­ষ্ট এবং আর্টিকুলেটেড ধরনের হয়ে থাকে। বি আর টি সি বাস সার্ভিস সম্পর্কে জানতে ওয়েব সাইট ব্রাউজ করতে পারে। বি আর টি সি বাস সার্ভিসের ওয়েব সাইটের ঠিকান www.brtc.gov.bd

 

 

বিআরটিসি বাসের সংখ্যা এবং মডেল

ক্রমিক নং বাসের মডেল চলাচলকারী বাস ভারী মেরামত মোট
০১. ভলভো ডাবল ডেকার ১০টি ৪০টি ৫০টি
০২. অশোক লে-ল্যান্ড ডাবল ডেকার ১০৯টি ২০টি ১২৯টি
০৩. টিসি বাস ১৩১৬/৫৫ ২৮৪টি ৩১টি ৩১৫টি
০৪. মিনি বাস ৮টি ৩টি ১১টি
০৫. সিএনজি বাস (এফএডব্লিউ চায়না) ২০টি ৪টি ২৪টি
০৬. চায়না সিএনজি বাস ২৪৩টি ২৪৩টি
০৭. কোরিয়ান সিএনজি বাস ২৫৩টি ২৫৩টি
০৮. বিভিন্ন মডেলের পুরাতন বাস ৪৬টি ৪৫টি ৯১টি

 

বিভিন্ন রুটে চলাচলকারী বাসের সংখ্যা

ক্রমিক নং রুট সংখ্যা
০১. ঢাকা সিটির মধ্যে ৩৫২ টি
০২. লেজি কর্তৃক পরিচালিত বাস ১১৫টি
০৩. রুটে চলাচলকারী ডাবল ডেকার বাস ৩৪টি
০৪. রুটে চলাচলকারী সিঙ্গেল ডেকার বাস ৪৮৭টি
০৫. স্টাফ বাস ডবল ডেকার (ঢাকার মধ্যে) ৭১টি
০৬. স্টাফ বাস সিঙ্গেল ডেকার (ঢাকার মধ্যে) ৫৫টি
০৭. স্টাফ বাস ডাবল ডেকার (ঢাকার বাইরে) ০৭টি
০৮. স্টাফ বাস সিঙ্গেল ডেকার (ঢাকার বাইরে) ১২টি
০৯. প্রশিক্ষণকাজে ব্যবহৃত বাস ১৫টি
১০. আন্তনগর চলাচলকারী বাস ৩৪৫টি

 

সিটি সার্ভিসএর রুটগুলো

বিআরটিসি বাস সার্ভিসের সিটি রুট মোট ১১টি। নিম্নে রুটগুলো বর্নিত হলো:

০১. আব্দুল্লাহপুর-মতিঝিল ভায়া ফার্মগেট

০২. বালুঘাট-ক্যান্টনমেন্ট-মতিঝিল ভায়া ফার্মগেট

০৩. আব্দুল্লাহপুর-আজিমপুর ভায়া মানিক মিয়া এভিনিউ

০৪. গাজীপুর-গুলশান ভায়া ফার্মগেট

০৫. মিরপুর ১২-মতিঝিল ভায়া ফার্মগেট

০৬. গাবতলী-গুলশান ভায়া ফার্মগেট

০৭. গাবতলী-খিলগাঁও ভায়া গুলশান ১

০৮. রুপনগর- মতিঝিল ভায়া ফার্মগেট

০৯. মোহাম্মদপুর-বাড্ডা ভায়া মহাখালী

১০. নবীনগর-গুলিস্থান ভায়া ফার্মগেট

১১. মোহাম্মদপুর-গুলশান ২ ভায়া ফার্মগেট পুলিশ বক্স।

 

স্কুল সার্ভিস

স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের যাতায়াতের জন্য ইতিমধ্যে ১৪ টি সিঙ্গেল ডেকার বাস ঢাকার মিরপুর ১২ থেকে আজিমপুর রুটে চলাচল করছে।

 

আন্তনগর বাস সার্ভিস (ডিপো)

ডিপো রুট
মতিঝিল বাস ডিপো ঢাকা-কলমাকান্দা, ঢাকা-মদন, ঢাকা-মোহনগঞ্জ, ঢাকা-মাওয়া, মতিঝিল-নরসিংদী, ঢাকা-ব্রাহ্মনবাড়ীয়া, ঢাকা-চাঁদপুর, ঢাকা-কোম্পানীগঞ্জ।
ডাবল ডেকার বাস ডিপো কল্যাণপুর-মেহেরপুর-কুষ্টিয়া, মহাখালী-চামড়াঘাট-গাজীপুর-কিশোরগঞ্জ
জোয়ার সাহারা বাস ডিপো শিববাড়ি-ফুলবাড়িয়া, গুলিস্থান-বান্দুরা, ঢাকা-মাওয়া, শালবন-রংপুর
রংপুর বাস ডিপো হরিপুর-চাপাই, পঞ্চগড়-চাপাই, পঞ্চগড়-খুলনা, রংপুর-পঞ্চগড়, রংপুর-তেতুলিয়া, পঞ্চগড়-গাইবান্ধা, রংপুর-চিলাহাটি, রংপুর-রানিসংকইল, রংপুর-বুড়িমারি, টোনিরহাট-গাইবান্ধা, চিলমারি-দেবীগঞ্জ, রংপুর-সুন্দরগঞ্জ-গাইবান্ধা, পঞ্চগড়-লক্ষীপাশা, পঞ্চগড়-নেত্রকোনা, সাটিবাড়ি-গাইবান্ধা, রংপুর-সামনাগঞ্জ, রংপুর-বরিশাল, রংপুর-চিলমারি, রংপুর-দহগ্রাম, রংপুর-দায়খাওয়া, রংপুর-ডামোইরহাট, রংপুর-ঢাকা।
কুমিল্লা বসা ডিপো কুমিল্লা-সুনামগঞ্জ, লক্ষীপুর-সিলেট, কিশোরগঞ্জ-বেনাপোল, কুমিল্লা-পাঞ্চরি, কুমিল্লা-ঢাকা।
পাবনা বাস ডিপো পাবনা-ডিনাজপুর, পাবনা-পিরোজপুর, পাবনা-চাপাই, খলিলপুর-চাপাই, মংলা-নেত্রকোনা, পঞ্চবটি-পাবনা, নওগাঁ-পাবনা, রাজশাহী-দেবীগঞ্জ, রাজশাহী-আমুয়া, চাপাই-পাথরঘাটা, মুজিবনগর-রাজশাহী, রাজশাহী-পঞ্চবটি, রাজশাহী-নওগাঁ, রাজশাহী-সুন্দরগঞ্জ, রাজবাড়ি-রংপুর, রাজশাহী-সাপাহার, রাজশাহী-বুড়িমারি, দিনাজপুর-গোপালগঞ্জ, পাবনা-রাজশাহী।
নারায়ণগঞ্জ বাস ডিপো ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ-কুলিয়ারচর,
নরসিংদী বাস ডিপো আখাউড়া-ঢাকা, নরসিংদী-ঢাকা, কুটিচৌমুহনী-ঢাকা
খুলনা বাস ডিপো খুলনা-কাঠালিয়া, খুলনা-কিশোরগঞ্জ, খুলনা-বরিশাল, খুলনা-পাথরঘাটা, খুলনা-রায়েন্দা, খুলনা-শ্যামনগর, যশোর-বরগুনা, যশোর-কুয়াকাটা, খুলনা-কাকচিড়া।
সিলেট বাস ডিপো সিলেট-চাদঁপুর, সিলেট-জাফলং।
বরিশাল বাস ডিপো বরিশাল-রংপুর, বরিশাল-চাপাই, কুয়াকাটা-খুলনা, বরিশাল-মুন্সীগঞ্জ, বরিশাল-বেনাপোল, চরফ্যাশন-যশোর, বরিশাল-আমুয়া, বরিশাল-পাথরঘাটা, বরিশাল-বরগুনা, বরিশাল-ঝালকাঠ-কুয়াকাটা, বরিশাল-খালিশপুর, কুয়াকাটা, কুয়াকাটা-কুষ্টিয়া, বরিশাল-কেওরাকান্দি।
চট্টগ্রাম বাস ডিপো চট্টগ্রাম-কোম্পানীগঞ্জ, চট্টগ্রাম-রাঙ্গামাটি, চট্টগ্রাম-চরজব্বার, চট্টগ্রাম-চরফ্যাশন, ট্টগ্রাম-সৈয়দপুর।
বগুড়া বাস ডিপো পঞ্চগড়-বরিশাল, কুড়িগ্রাম-গোপালগঞ্জ, বগুড়া-খুলনা, বগুড়া-ঝালকাঠি, বগুড়া-রোহনপুর, বগুড়া-জয়পুরহাট, বগুড়া-নওগা, বগুড়া-কানসাট, বগুড়া-সাপাহার, রাজশাহী-বুরুঙ্গামারি, রাজশাহী-সাফারা, দিনাজপুর-রংপুর, দিনাজপুর-চিলমারি, দিনাজপুর-ভুরুঙ্গামারি, বগুড়া-দিনাজপুর, সুন্দরগঞ্জ-চট্টগ্রাম, কুড়িগ্রাম-পিরোজপুর, বগুড়া-তেতুলিয়া, নিটপুর-রাজশাহী, রোহনপুর-ভোলারহাট, বগুড়া-মৌবাজার, বগুড়া-বস্তাবর, রাজশাহী-গাইবান্ধা, বগুড়া-ঢাকা, বগুড়া-জয়পুরহাট।

 

গুলিস্তান টার্মিনাল থেকে আন্ত:জেলা বাস সার্ভিস এবং ভাড়ার হার

রুট ভাড়া ষ্ট্যান্ড সিট সংখ্যা দাঁড়ানো যাত্রী সময়
ঢাকা- পাটুরিয়া ১২০ টাকা মানিকগঞ্জ ৪০ না প্রতি ঘন্টা
ঢাকা-মানিকগঞ্জ ৭০ টাকা মানিকগঞ্জ ৪০ না প্রতি ঘন্টা
ঢাকা-ভৈরব ১৬০ টাকা —- ৪০ না ১০ মিনিট অন্তর
ঢাকা-পিরোজপুর ২২০ টাকা —- ৪০ না সকাল ৭.১৫ মিনিট

সকাল ৭.৪৫ মিনিট

ঢাকা-মাওয়া ৬০ টাকা শ্রীনগর ৪০ না  

প্রতি ১০ মিনিট অন্তর

 

অগ্রিম টিকেটের নিয়মাবলী

ক) মাসিক টিকেটের জন্য (বিআরটিসি) গুলিস্তান অফিস থেকে আবেদনপত্র সংগ্রহ করে তা জমা দিয়ে ৭ দিনের মধ্যে টিকেট পাওয়া যাবে। আবেদন পত্র ফি ৫০ টাকা।

খ) ছাত্র কার্ড- আবেদন পত্রের মূল্য ২০ টাকা। আবেদনপত্র জমা দেওয়ার ৩ দিনের মধ্যে কার্ড পাওয়া যায়। এই কার্ডের মূল্যায়ন ৫০% ছাড়ে কার্যকর হবে।

 

স্টাফ বাস সার্ভিস

ক্রমিক নং ডিপোর নাম স্টাফ বাস মোট
সিঙ্গেল ডেকোর ডাবল ডেকোর
০১. ডাবল ডেকোর বাস ডিপো ৯টি ১২টি ২১টি
০২. কল্যাণপুর বাস ডিপো ২৬টি ৫২টি ৭৮টি
০৩. জোয়ারসাহারা বাস ডিপো ১৮টি ২টি ২০টি
০৪. মতিঝিল বাস ডিপো ২টি ৫টি ৭টি

এছাড়া ঢাকার বাইরেও বিআরটিসি এর বাস সার্ভিস রয়েছে। যেমন:

  • চট্টগ্রাম বাস ডিপো-ডাবল ডেকার বাস ৩টি।
  • খুলনা বাস ডিপো-ডাবল ডেকার বাস ১টি।
  • পাবনা বাস ডিপো-ডাবল ডেকার বাস ৩টি।
  • সিলেট বাস ডিপো-সিঙ্গেল ডেকার বাস ১২টি।

 

ষ্টাফ বাসের রুট ও অন্যান্য

ক্রঃ নং জোয়ারসাহারা বাস ডিপো সংখ্যা মতিঝিল বাস ডিপো সংখ্যা কল্যাণপুর বাস ডিপো সংখ্যা দ্বিতল বাস ডিপো সংখ্যা সর্বমোট
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ১০ অগ্রণী ব্যাংক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ৩১ জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয় —-
উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ২০৬ ব্র্যাক জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ১০ বিসিআইসি —-
সোনালী ব্যাংক   মহিলা সার্ভিস সচিবালয় ১০ অগ্রণী ব্যাংক —-
—- —- জয়দেবপুর ষ্টাফ বাস সুপ্রীম কোট সুপ্রীম কোট —-
—- —- —- —- শিক্ষা বোর্ড ইডেন কলেজ —-
—- —- —- —- বিআরডিবি বিএডিসি —-
—- —- —- —- তিতুমীর কলেজ —- —- —-
  মোট বাস সংখ্যা = ১৮ —- —- ৬৬ —- ২২ ১১৫

 

আন্তর্জাতিক বাস সার্ভিস

বিআরটিসি এর এক্ষেত্রে দুই ধরনের বাস সার্ভিস রয়েছে। যেমন; (ক) ঢাকা-কোলকাতা আন্তর্জাতিক সার্ভিস এবং (খ) ঢাকা-আগরতলা বাস সার্ভিস।

 

ঢাকা কোলকাতা আন্তর্জাতিক বাস সার্ভিস
  • দুটি বাস ঢাকা-কোলকাতা রুটে চলাচল করে। প্রতিটি বাসে ৪০ জন যাত্রী যাতায়াত করতে পারে। বাসদুটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এবং আন্তর্জাতিক মানের সুপার ডিলাক্স বাস।
  • যাত্রী প্রতি ভাড়া ৩০০০ টাকা (মা:ড: ২২) উভয়দিক।
  • সপ্তাহের রবিবার দিন বাসদুটির ঢাকা-কোলকাতা রুটে চলাচল করে না।
  • ঢাকা থেকে কোলকাতার উদ্দেশ্যে প্রথম বাসটি ছেড়ে যায় বাংলাদেশ সময় সকাল ৭.০০ টায় এবং দ্বিতীয় বাসটি ছাড়ে সকাল ৭.৩০ টায়।
  • কোলকাতা থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে প্রথম বাসটি ছেড়ে যায় ইন্ডিয়া সময় সকাল ৬.৩০ টায় এবং দ্বিতীয় বাসটি ছেড়ে যায় সকাল ৭টায়।
  • বাংলাদেশে বাসগুলো পরিচালিত হয় সোমবার, বুধবার এবং শুক্রবার।
  • ইন্ডিয়ায় বাসগুলো পরিচালিত হয় শনিবার, মঙ্গলবার এবং বৃহস্পতিবার।
  • প্রতিটি যাত্রী নিজের সংগে ২০ কেজি ওজনের মালামাল বহন করতে পারবেন।

 

ঢাকা আগরতলা আন্তর্জাতিক বাস সার্ভিস
  • একটি বাস ঢাকা-আগরতলা রুটে চলাচল করে। বাসে ৪০ জন যাত্রী যাতায়াত করতে পারে। বাসদুটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এবং আন্তর্জাতিক মানের সুপার ডিলাক্স বাস।
  • যাত্রী প্রতি ভাড়া ৬০০ টাকা (মা:ড: ১০) উভয়দিক।
  • এই সার্ভেসের বাসে পরিবহনের সময়সূচী জানতে ৮৩৬০২৪১ নম্বরে ডায়াল করুন।

 

বুকিং এবং টিকেট ক্রয়
  • অনলাইনে ঢাকার ভিতরে টিকেট কাটার ব্যবস্থা রয়েছে।
  • টিকিট বুকিংয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ফোন নং ৯৩৫৩৮৮২।
  • টিকিট ক্রয়ে পাসপোর্ট দেখাতে হয়না।
  • টিকিট ক্রয়ের ৩৬ ঘন্টার মধ্যে ফেরত দিতে হয়। টিকিট ফেরত দেয়ার সময় মোট মূল্যের ১০% কেটে রেখে অবশিষ্ট টাকা ফেরত দেয়া হয়।
  • টিকিট লাইন ধরে ক্রয় করতে হয়।
  • রিটার্ন টিকিট ক্রয়ের ব্যবস্থা রয়েছে।

 

-টিকেটিং সিস্টেম

বিআরটিসিতে ই-টিকেটিং সিস্টেম চালু করেছে। ঢাকা মহানগরীর ০৩টি ডিপোর নিয়ন্ত্রণে ০৭টি রুটে ই-টিকেটিং সিষ্টেম পরিচালিত হচ্ছে।

  • কল্যাণপুর বাস ডিপো নিয়ন্ত্রণে মোহাম্মদপুর-বাড্ডা ও গুলিস্তান-নবীনগর রুট।
  • দ্বিতল বাস ডিপো নিয়ন্ত্রণে মিরপুর১২-মতিঝিল
  • জোয়ার সাহারা বাস ডিপোর নিয়ন্ত্রণে বালুঘাট-ক্যান্টনমেন্ট ও শিববাড়ী-গুলিস্তান রুট পরিচালিত হচ্ছে।

 

যাত্রী সার্ভিস
  • সকালের নাস্তা, খাবার পানি এবং শীতের দিনে কম্বলের ব্যবস্থা রয়েছে।
  • সিডি ক্যাসেট প্লেয়ার এবং এলসিডি মনিটর রয়েছে।
  • ওয়েটিং রুমে ৬০ জন লোক বসতে পারে।
  • বিনোদনের জন্য টেলিভিশন দেখার ব্যবস্থা রয়েছে।
  • পুরুষ এবং মহিলাদের জন্য পৃথক টয়লেট ব্যবস্থা রয়েছে।
  • বাসের ভিতর ধুমপান করা যায় না।
  • ট্রাভেল ট্যাক্স, ইমিগ্রেশন বা বোর্ডারে কুলি ইত্যাদির জন্য বিআরটিসি কোন সার্ভিস প্রদান করে না।

 

যাত্রী কোথায় নামানো হয় / কাউন্টার
  • কলকাতাগামী বাস ভারতে করুনাময় এবং সল্ট লেকে যাত্রী নামানো হয়।
  • আগরতলাগামী বাস বিআরটিসি বাস ডিপোতে যাত্রী নামানো হয়।
  • ভারতে করুনাময়, সল্টলেক, আগরতলা বিআরটিসি ডিপোতে কাউন্টার রয়েছে।

 

যেভাবে নিয়ে যাওয়া হয়
  • সীমান্তে কলকাতা যাওয়ার সময় বাংলাদেশের বেনাপোল এবং ভারতের হরিদাসপুরে এবং আগরতলা যাওয়ার সময় বাংলাদেশের আখাউড়া এবং ভারতের ত্রিপুরায় কাস্টম চেকআপ করানো হয় এবং সেখানে ১ ঘন্টা করে দুটি স্থানে ২ ঘন্টা সময় লাগে।
  • সীমান্তে বাস বদল করা হয় না।
  • বেনাপোল ও আখাউড়া বন্দর দিয়ে বাসে ভারতে যাওয়ার সার্ভিস চালু রয়েছে।
  • শহরের ভেতরে কাউন্টার থেকে যাত্রী সংগ্রহ করা হয়।
  • মিনিবাস, মাইক্রোবাসের ব্যবস্থা নেই।
  • যাত্রা শুরুর পূর্বে ভিডিও চিত্র নেয়া হয় না।
  • গাড়ির সকল যাত্রী ভিসা করা হয় না এবং দূর্ঘটনা ঘটলে ক্ষতিপূরণ দেয়া হয় না।

 

মালপত্র পরিবহন
  • প্রতিটি যাত্রী নিজের সাথে ২০ কেজি ওজনের মালামাল বহন করতে পারবে।
  • অতিরিক্ত ওজনের কোন মালামাল বহন করা হয় না।
  • যাত্রাকালে কোন লাগেজ বা ব্যাগ হারালে কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।
  • লাগেজ পরীক্ষা করা হয়।

 

যাত্রা বিরতি
  • প্রতিটি যাত্রী নিজের সাথে ২০ কেজি ওজনের মালামাল বহন করতে পারবে।
  • অতিরিক্ত ওজনের কোন মালামাল বহন করা হয় না।
  • যাত্রাকালে কোন লাগেজ বা ব্যাগ হারালে কর্তৃপক্ষ দায়ী নয়।
  • লাগেজ পরীক্ষা করা হয়।

 

অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য
  • কোন যাত্রী অসুস্থ হলে প্রাথমিক চিকিত্সা দেয়ার ব্যবস্থা রয়েছে।
  • শিশু/মহিলা/প্রতিবন্ধীদের জন্য পৃথক কোন সিট বরাদ্দ থাকে না।
  • গাড়ির অভ্যন্তরে এয়ার ফ্রেশনার ব্যবহার করা হয়।
  • যাত্রাকালে নামাজের বিরতি দেয়া হয়।

    তথ্য সুত্রঃ- অনলাইন ঢাকা গাইড

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here