ব্যাংকক এয়ারওয়েজ সম্পর্কিত তথ্য এবং ঢাকা, বাংলাদেশ বিক্রয় অফিসের ঠিকানা

0
851

ব্যাংকক এয়ারওয়েজ একটি আঞ্চলিক থাই বিমান সংস্থা যা সাহাকোল এয়ার নামে যাত্রীদের নিকট পরিচিত।এর দুই সংখ্যার (IATA)কোড PG।ব্যাংকক এয়ারওয়েজ আন্তর্জাতিক এবং অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন গন্তব্যে যাত্রী পরিবহন করে।ব্যাংকক এয়ারওয়েজ তাদের প্রধান সদর দপ্তর সুভারনভূমি বিমানবন্দর (BKK) থেকে বিমান গুলো পরিচালনা করে। তার পাশাপাশি ফুকেত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (HKT) এবং চিয়াং মাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (CNX) থাকেও বিমান পরিচালনা করে।

ব্যাংকক এয়ারওয়েজ তাদের যাত্রী সেবার মান উচ্চ পর্যায়ে সুনিশ্চিত করায় সাধারন যাত্রীদের নিকট “এশিয়া বুটিক এয়ারলাইন্সের” হিসাবে নিজেদের সুপরিচিতি অর্জন করেছে।ব্যাংকক এয়ারওয়েজ সর্বমোট ২৫টি গন্তব্যস্থলে যাত্রী পরিবহন করে থাকে যার মধ্যে ১১টি অভ্যন্তরীণ এবং ১৪টি আন্তর্জাতিক গন্তব্যস্থল রয়েছে।ব্যাংকক এয়ারওয়েজের আন্তর্জাতিক গন্তব্যস্থল গুলোর মধ্যে বাংলাদেশ, কম্বোডিয়া, হংকং, লাওস, মালদ্বীপ, মায়ানমার এবং সিঙ্গাপুরের মতো দেশ রয়েছে।বিমান সেবা প্রদানকারী সংস্থা গুলোর মান নিয়ন্ত্রণকারী কোম্পানি স্কাইট্র্যাক্স ধারাবাহিকভাবে ব্যাংকক এয়ারওয়েজকে অত্যন্ত উচ্চমান সম্পন্ন সংস্থা হিসাবে বিবেচিত করেছে।বর্তমানে ব্যাংকক এয়ারওয়েজ চার-তারকা পদমর্যাদা সম্পন্ন বিমান পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা হিসাবে যাত্রীদের বিমান সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

বিমান পরিবহণ সেবা গ্রহনে ইচ্ছুক যাত্রীদের ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে ব্যাংকক এয়ারওয়েজ ১৯৮৬সালে আনুষ্ঠানিকভাবে দেশটির প্রথম বেসরকারি মালিকানাধীন বিমান হিসাবে অভ্যন্তরীণ গন্তব্য গুলোতে তাদের কার্যক্রম শুরু করে।প্রাথমিকভাবে ব্যাংকক থেকে ক্রাবি, কোরাত এবং সুরিনে নির্ধারিত বিমান দ্বারা যাত্রী পরিবহন শুরু করে।বর্তমানে ব্যাংকক এয়ারওয়েজ থাইল্যান্ডের প্রধান প্রধান পর্যটন কেন্দ্র গুলোতে যাত্রী পরিবহন করার কথা মাথায় রাখে ২০টিরও বেশি প্রধান অভ্যন্তরীণ গন্তব্যে নির্ধারিত বিমান পরিচালনা করার মদ্ধদিয়ে যাত্রী পরিবহন করে।উপরন্তু, ব্যাংকক এয়ারলাইন মায়ানমার, লাওস, কম্বোডিয়া, ভিয়েতনাম, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, চীন এবং জাপানের মতো দেশ গুলোতে আন্তর্জাতিকভাবে যাত্রী পরিবহন করার অনুমতি পেয়েছে।

ব্যাংকক এয়ারওয়েজ স্যামুই, সুখোতাই এবং ট্র্যাটে ব্যক্তিগতভাবে পরিচালিত নিজ মালিকানায় বিমানবন্দর নির্মাণ, অবকাঠামো নির্মাণ সহ নতুন নতুন খাতে বজায় বিনিয়োগ করে যাচ্ছে।বাক্তিগত উদ্যোগে বিমানবন্দর নির্মাণের ফলে থাইল্যান্ডের বিমান পরিবহন ব্যবস্থা আরও আধুনিকায়ন সহ ক্রমবর্ধমান যাত্রীদের চাপ মোকাবেলায় অধিক পরিমান যাত্রী পরিবহন সম্ভব হচ্ছে। যার ফলস্রতিতে থাইল্যান্ডের অর্থনীতি আরও বেগবান হচ্ছে।
বাংলাদেশের বাজারে ব্যাংকক এয়ারওয়েজ এর টিকিট বিক্রি করে এমন অনেক ট্র্যাভেল এজেন্ট রয়েছে। তবে সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য অনুমোদিত বিক্রয় এজেন্টগুলির একটি এয়ারওয়েজ অফিস বা জু ইনফোটেক (বাংলাদেশে শীর্ষস্থানীয় ট্র্যাভেল এজেন্ট) যারা বিমান শিল্প ও ভ্রমণ সংশ্লিষ্ট প্রযুক্তি গত দিক নিয়ে কাজ করে। সর্বোচ্চ সস্তা মূল্যে বিমানের টিকেট এবং অন্যান্য পরিষেবা পেতে এয়ারওয়েজ অফিসের ঠিকানায় যোগাযোগ করুন।

ঢাকাস্থ ব্যাংকক এয়ারওয়েজ এর বিক্রয় প্রতিনিধির অফিসে যোগাযোগের ঠিকানা

এয়ারওয়েজ অফিস
রোড ৩, হোল্ডিং ৩, সুইট ৩৪,
হ্যাপি আর্কেড শপিং মল,
ধানমণ্ডি,ঢাকা ১২০৫, বাংলাদেশ।
মোবাইল নাম্বার: ০১৯৭৮৫৬৯২৯৪– ৯৫-৯৬
অফিসিয়াল ওয়েবসাইটঃ http://www.bangkokairwaysticket.com/
সকাল ১০.৩০ টা থেকে রাত ৮.৩০টা পর্যন্ত(সপ্তাহে ৭ দিন খোলা)

এয়ারওয়েজ অফিসের গুগল ম্যাপ লোকেশন –

 

এয়ারওয়েজ অফিসের ফেসবুক পেজ –

ঢাকাস্থ ব্যাংকক এয়ারওয়েজ এর কর্পোরেট অফিসে যোগাযোগের ঠিকানা:

এয়ার গ্যালাক্সি লিমিটেড
৫ম তলা, তাজ ক্যাসিলিনা সেন্টার
২৫গুলশান এভিনিউ ঢাকা-১২১২
টেলিফোন নাম্বারঃ +৮৮০২ ৯৮৫ ৪৫২৬-২৪ ফ্যাক্স নাম্বার: +৮৮০২ ৯৮৫ ৪৫৩০
ই-মেইল: rsvn.dacpg@airgalaxy.com.bd
ওয়েবসাইট: https://www.bangkokair

ব্যাংকক এয়ারওয়েজ এর চট্টগ্রাম বিক্রয় অফিসের ঠিকানা:

এয়ার গ্যালাক্সি লিমিটেড
আইয়ুব ট্রেড সেন্টার (প্রথম তলা)
এস কে মুজিব রোড – আগ্রাবাদ চট্টগ্রাম, বাংলাদেশ।
টেলিফোন নাম্বার: +৮৮ ০৩১ ৫২১ ৬৫৩৬-৭
মোবাইল নাম্বার: +৮৮০১৬১৮১৮১৩১৩, +৮৮০১৭৬৮২৩২৩১১
ফ্যাক্স: +৮৮ ০৩১ ২৫১ ২০০৫
ই-মেইল: rsvn.cgp@airgalaxy.com.bd

বিমানের যাত্রীদের খাবার সম্পর্কিত তথ্যঃ

প্রতিটি বাণিজ্যিক বিমানের বিনা মূল্যে যাত্রীদের খাবার পরিবেশন করা হয়। এই খাবার বিশেষজ্ঞ এয়ারলাইন ক্যাটারিংদের দ্বারা প্রস্তুত করা হয় এবং সাধারণত বিমানের ভেতর সার্ভিস ট্রলি ব্যবহার করে যাত্রীদের কাছে পৌছানো হয়। কম খরচে বিমান পরিষেবা প্রদানকারী বিমান গুলতে যাত্রীদের কোন ধরনের খাবার সরবরাহ করা হায় না। তবে আপনি চাইলে ফ্লাইট থেকে খাবার কিনতে পারেন।বিমানের ভেতর যাত্রীসেবা সমূহ আরও সুবিধাজনক এবং সুনিশ্চিত করার জন্য যাত্রীদের বিভিন্ন সেবার নাম সম্বলিত প্রাক বই সরবরাহ করা হয়।

ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিমান সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য জানার উপায়:

যাত্রীদের ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিমান সম্পর্কিত তথ্য জানার প্রক্রিয়াকে বলে অনলাইন চেক-ইন। এটি এমন প্রক্রিয়া যেখানে যাত্রীরা ইন্টারনেটের মাধ্যমে তাদের ফ্লাইটে উপস্তিথির তথ্য নিশ্চিত এবং তাদের নিজস্ব বোর্ডিং পাসগুলি মুদ্রণ করতে পারেন।ক্যারিয়ার এবং নির্দিষ্ট ফ্লাইটের ধরনের উপর নির্ভর করে যাত্রীরা তাদের পছন্দের খাবার এবং খাবারের বিকল্প ও মালপত্রের পরিমাণের তথ্য নিশ্চিত করতে পারেন । তাছাড়া যাত্রীরা উক্ত পক্রিয়ার মাধ্যমে তাদের পছন্দের আসন পূর্বেই নির্বাচন করতে পারে।
#অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট এর ক্ষেত্রে প্রস্থানের নির্ধারিত সময় থেকে  ১ কিংবা ১ঃ৩০ ঘন্টা আগে চেক-ইন করতে হয়।
#যাত্রীরা তাদের ই-বোর্ডিং পাস চেক ইন এর জন্য মোবাইল ওয়েবসাইট বা মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করতে পারেন।

ব্যাংকক এয়ারলাইন্সের ঢাকা অফিসের ঠিকানা বা ফোন নাম্বারে সংক্রান্ত যে কোনও সমস্যা / অভিযোগ নীচে কমেন্ট করে জানাতে পারেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here