সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস লিমিটেড।

8517

সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিস লিমিটেড দেশ ও দেশের বাইরে পার্সেল পৌছানোর ব্যবস্থা করে থাকে। দেশের বাইরে ১৬৫ টি দেশে পার্সেল পাঠানোর ব্যবস্থা রয়েছে।

 

প্রধান কার্যালয়ের ঠিকানা

অবস্থান: মতিঝিলে এবি ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের দক্ষিণ দিকের রাস্তা দিয়ে ১৫০ গজ এগিয়ে হাতের ডান পাশে সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের প্রধান কার্যালয় অবস্থিত।

ঠিকানা: ২৪-২৫, দিলকুশা বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা- ১০০০।

ফোন নম্বর: +৮৮-০২- ৯৫৫৯৬৩৫, ৯৫৫১৯৮৪, ৯৫৫১৬৫৬, ৯৫৬৪২১৮

ফ্যাক্স নম্বর: ৮৮-০২-৯৫৬৩৯৯৫

ই-মেইল:  scsl@citecho.net

ঢাকার বাইরের শাখা সমূহের ঠিকানা

জেলা ঠিকানা
জয়পুরহাট নদ্দি মার্কেট (২য় তলা) সদররোড
ঝিনাইদহ ১৮৫ এইচ.এস.এন রোড (জাহিদ ষ্টোর।
কুষ্টিয়া ৫২, এন.এফ রোড, কুষ্টিয়া।
দিনাজপুর রাজসুজ মিশন স্কুলের সামনে
পাবনা বানী সিনেমা হলের উত্তর পাশে (এস.এন.বি মার্কেট)।
সিরাজগঞ্জ সৌর বিনানী জালালাবাদ বেকারীর পাশে
রংপুর প্রেস ক্লাব এর ২য় তলা, রংপুর।
নোয়াখালী  আবু সুপার মার্কেট, সদর।
বগুড়া ঢাকা ব্যাংকের নিচে (ঝাউতলা)
ফেনী ট্যাংক রোড সাউত হাট ব্যাংকের পাশে।
রাজশাহী সাহেব বাজার মার্কেট, রাজশাহী।
কক্সবাজার ঢাকা ব্যাংকের পাশে ,কক্সবাজার
নওগাঁ নওগাঁ পুরাতন বাসষ্টান্ডের সামনে।
লক্ষ্মীপুর চিতাঘা মসজিদের সামনে, লক্ষ্মীপুর।

 

 

জেলা সদর ছাড়াও থানা সদরে এই কোম্পানীর সার্ভিস পাওয়া যায়।

 

যেসব পার্সেল পাঠানো ব্যবস্থা রয়েছে

  • চিঠিপত্র
  • সংবাদপত্র
  • টাকা
  • হালকা পণ্য
  • ডকুমেন্ট
  • মোবাইল
  • মূল্যবান কাগজপত্র
  • কাপড়

 

দেশের ভেতর পার্সেল পাঠানোর খরচ

  • প্রতি কেজি দশ টাকা হারে পার্সেলের ভাড়া নেওয়া হয়ে থাকে।
  • দেশের ভিতরে ১৬ ঘন্টার মধ্যে পৌছানো হয়ে থাকে।
  • এই কোম্পানীর মাধ্যমে নগদ টাকা পাঠানোর ব্যবস্থা রয়েছে। পাঠানো মূল টাকার  ৫% কমিশন প্রদান করতে হয়।
  • এখানে পণ্য প্যাকেজিংয়ের জন্য ছোট কার্টুন ৩০ টাকা এবং বড় কার্টুন ৮০ টাকা হারে প্রদান করতে হয়।

 

বিদেশে পার্সেল পাঠানোর খরচ

দেশের বাইরে মোট ১৫৫ টি দেশে পণ্য পৌঁছানোর ব্যবস্থা রয়েছে। পার্সেলের খরচ নিম্নরুপ-

স্থান পণ্যের ধরণ ওজন পণ্যের খরচ পৌঁছানোর সময়
ভারত যেকোন পণ্য ১ কেজি ৫০০ টাকা ৪৮ ঘন্টা
পাকিস্তান যেকোন পণ্য ১কেজি ১৮০০ টাকা ৭২ ঘন্টা
সৌদি আরব যেকোন পণ্য ১ কেজি ২০০০ টাকা    ৭২ ঘন্টা
আমেরিকা যেকোন পণ্য ১ কেজি ২৮০০ টাকা ৭২ ঘন্টা

 

বিবিধ

  • কোন রকম অবৈধ মালামাল পৌঁছানো হয় না।
  • মূল্যবান দ্রব্যাদি পৌঁছানোর জন্য আলাদা প্যাকিং ব্যবস্থা রয়েছে।
  • পণ্য সময়মত না পৌঁছালে এর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়। এর জন্য আর্থিক ক্ষতিপূরন দেয়া হয়।
  • পণ্য হারিয়ে গেলে প্রাপক/ প্রেরক যে শাখায় পণ্য পৌঁছানো হয়ে দিল সেখানে সরাসরি বা ফোনে বা মোবাইলে যোগাযোগ করতে হয়।
  • হারিয়ে যাওয়া পণ্যের ক্ষতিপূরণ দেয়া হয় বাজার মূল্য অনুযায়ী সমপরিমান অর্থ তিনদিনের মধ্যে দেয়া হয়।