শহীদ জিয়া শিশু পার্ক

1072

যান্ত্রিক নগরী ঢাকাতে সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের অন্যতম বিনোদনের স্থান “শহীদ জিয়া শিশু পার্ক”। এটি বাংলাদেশের জাতিয় শিশু পার্ক। মূলত শিশু পার্ক হলেও সকল বয়সের মানুষের জন্য এই পার্কটি উন্মুক্ত। এই পার্কটি ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ঠিক পাশে এবং রমনা পার্কের বিপরীত পাশে অবস্থিত। ১৯৭৯ সালে এই পার্কটি প্রতিষ্ঠিত হয়। শিশু পার্কটি ১৫ একর জায়গার উপর প্রতিষ্ঠিত এবং এটির রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচালনার দায়িত্ব রয়েছে ঢাকা দক্ষিন সিটি কর্পোরেশন। প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৭ থেকে ১০ হাজার মানুষ এই পার্কটিতে আসে। ঈদ বা অন্যান্য উৎসবে এই পরিমান অনেকগুন বেড়ে যায়। “শহীদ জিয়া শিশু পার্কের সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো এখানে সপ্তাহে একটি দিন সুবিধাবঞ্চিত ও অসচ্ছল শিশুদের বিনামূল্যে প্রবেশ করতে দেয়া হয়।

প্রতিষ্ঠা লগ্নের পর থেকেই শিশু পার্কটি সকলের নিকট জনপ্রিয়। ঢাকা শহরে বসবাসকারী মানুষদের জন্য এটি অন্যতম একটি বিনোদন কেন্দ্র। বর্তমানে শিশু পার্কটিতে উড়ন্ত বিমান, উড়ন্ত নভোযান, রোমাঞ্চ চক্র, আনন্দ ঘূর্ণি, বিস্ময় চক্র, এসো গাড়ি চড়ি, ছোট মনিদের রেল গাড়ী, চাকা পায়ে চলা, লম্ফ ঝম্ফ, ঝুলন্ত চেয়ার, ফুলদানী আমেজ, এফ-৬ জঙ্গি বিমান নামের মোট ১২ টি রাইড রয়েছে। তাছাড়াও পার্কের ভেতর সাধারন মানুষের বসার জন্য বিভিন্ন সুসজ্জিত জায়গা রয়েছে। প্রতিটি রাইডে চড়ার জন্য মাথাপিছু ছয় টাকার টিকিট দরকার হয়। পার্কে প্রবেশমূল্য জনপ্রতি আট টাকা।

যেভাবে যাবেনঃ

শহীদ জিয়া শিশু পার্কটি ঢাকার প্রান কেন্দ্র শাহবাগে অবস্থিত বলে যেকোন জায়গা থেকে খুব সহজেই চলে আসা যায় এই জায়গাটিতে। শাহবাগগামী যেকোন বাসে চড়ে শাহবাগ গোল চত্বরে নেমে পল্টনের দিকে দু মিনিট হাঁটলেই চোখে পড়বে শিশু পার্কটি।

সময়সূচিঃ
বুধবার ছাড়া সোম থেকে শনিবার খোলা দুপুর ১টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা (অক্টোবর-মার্চ)।
দুপুর ২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত (এপ্রিল-সেপ্টেম্বর)।
সাপ্তাহিক বন্ধ : রবিবার।