হিমছড়ি পাহাড়রের শীতল পানির ঝর্ণা

1205

কক্সবাজার গিয়েছেন কিন্তু হিমছড়িতে যাননি এমন পর্যটক হয়ত খুঁজে পাওয়া যাবেনা। কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের পর পর্যটকদের মুখে উচ্চারিত হয় হিমছড়ির নাম। হিমছড়িতে রয়েছে পাহাড়, সমুদ্র ও ঝর্ণার অপূর্ব মিলন মেলা। যা সমুদ্র পিপাসুদের বিমোহিত করে। হিমছড়িকে ঘিরে প্রতিনিয়ত সমাগম ঘটে দেশী ও বিদেশী পর্যটকদের।

কক্সবাজার শহর থেকে ১২ কিলোমিটার দূরে পাহাড়ের কোল ঘেঁষে হিমছড়ি সমুদ্র সৈকত। আর এ হিমছড়িতেই রয়েছে দেশের একমাত্র শীতল পানির ঝর্ণা।এখানে বেশ কয়েকটি ছোট-বড় পাহাড়ি ঝর্ণা রয়েছে। এসব ঝর্ণার পানি প্রবাহ পর্যটকদের আকৃষ্ট করে। সিঁড়ি বেয়ে উঁচু পাহাড়ে উঠে সাগর, পাহাড় ও কক্সবাজারের দৃষ্টিনন্দন নৈসর্গিক সৌন্দর্য খুব সহজেই অবলোকন করা যায়।

শীতল পানির ঝর্ণা হিমছড়ি পাহাড়ের উপরে রয়েছে বেশ কিছু বিশ্রামাগার। এখান থেকে পুরো সৈকতটা দেখা যায়। হিমছড়ি পাহাড়রের শীতল পানির ঝর্ণাটা অসাধারণ। বর্ষাকালে এই ঝর্ণার প্রকৃত রুপ দেখা যায় সম্পূর্ণভাবে। তাই এখনই এই ঝর্ণার প্রকৃত রুপ দেখতে যাওয়ার মোক্ষম সময়।

যেভাবে যাবেনঃ-

কক্সবাজার শহর থেকে জিপ গাড়িতে চড়ে হিমছড়িতে যাওয়া যায়। হিমছড়ির উদ্দেশে কক্সবাজার সৈকত থেকে সব সময়ই গাড়ি ছেড়ে যায়। এছাড়া আপনি চাইলে রিক্সা বা অটোরিক্সাতেও হিমছড়ি যেতে পারেন।