আমতলি নেচার রিসোর্ট।ঢাকা, বাংলাদেশ

484

আমতলি নেচার রিসোর্ট
রাসিদপুর,বাহুবল,হবিগঞ্জ

বাংলাদেশ নৈসর্গীক সৌন্দরর্যের দেশ। প্রাণ প্রকৃতির অপরূপ এই দেশে ভ্রমন একটি অন্যতম আনন্দ দায়ক ব্যপার। বাংলাদেশের মানুষের ভ্রমন তালিকার শীর্ষ স্থান গুলোর একটি সিলেট জেলা। এই জেলাতে যেমনি বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান রয়েছে তেমনি রয়েছে মানুষের তৈরি বিভিন্ন নান্দনীক হোটেল এবং রিসোর্ট। তেমনি একটি রিসোর্ট হলো হবিগজ্ঞের আমতলি নেচার রিসোর্ট।

প্রান প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দরর্যের লিলাভূমি সিলেটের চা বাগান ঘেসে গড়ে উঠেছে এই রিসোর্টটি। উচু উচু পাহাড় আর সবুজের সমারোহ রিসোর্টের আশপাশ জুরে। তাছাড়া অপরূপ এক আবহাওয়া এই অঞ্চলটিতে। রিসোর্টের মন মুগ্ধকর পরিবেশ যে কারোর মন ভালো করে দিবে। রিসোর্ট নির্বাচনে সময় রিসোর্টের নিরাপতা ব্যবস্থা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নেয়া উচিত। আমতলি নেচার রিসোর্টের নিরাপত্তা ব্যবস্থা অনেক উন্নতও মানের।

রিসোর্টের সাধারণ কিছু সুবিধা:-

১। ফ্রী ওয়াইফাই
২। ফ্রী পার্কিং সুবিধা
৩। সকালের নাস্তার ব্যবস্থা
৪। ২৪ ঘন্টা রূম সার্ভিস
৫। হেল্প ডেক্স সুবিধা
৬। শিশুদের জন্য আলাদা খেলার জায়গা

কামরা বিষয়ক তথ্য:-

১। ইউনিট:- ২এ(২ জনের উপযুক্ত কামরা)

২টি ডাবল বিছানা
একটি ডাইনিং টেবিল
একটি ড্রয়িং রূম
একটি টয়লেট
শীতাতপ নিয়ত্রণ ব্যবস্থা
টেলিভিশন
একস্ট্রা বিছানা সুবিধা

ভাড়া:- ৫০০০(প্রতি রাত)

২।ইউনিট:- ১( সর্বোচ্চ ৬ জনের জন্য উপযুক্ত পরিপূর্ণ কটেজ)

২টি বেড রূম
একটি ডাইনিং টেবিল
একটি ড্রয়িং রূম
২টি টয়লেট
শীতাতপ নিয়ত্রণ ব্যবস্থা
টেলিভিশন
একস্ট্রা বিছানা সুবিধা

ভাড়া:-৭,৫০০(প্রতি রাত)

পেমেন্ট বিষয়ক তথ্য:

১। প্রীপেইড সিস্টেম
২। কোন প্রকার লুকনো চার্জে নেই
৩। কার্ডের মাধ্যমে পেমেন্ট ব্যবস্থা( মাটার কার্ড,ভিসা কার্ড) বিকাশ।
৪। রিফান্ডের ব্যবস্থা

বিশেষ তথ্য:-

১। চেক ইন:- দুুপুর ১২:০০ টায়
২। চেক আউট:- সকাল ১১:০০ টায়
৩। পোষা প্রাণী প্রবেশের অনুমতি নেই

যেভাবে যাবেন:-

ঢাকার গাবতলী,কলাবাগান,ট্যেকনিকাল মোড় থেকে হবিগঞ্জগামী অনেক বাস চলাচল করে। সেসব বাসে করে হবিগজ্ঞে চলে আসতে হবে। সেখান থেকে সিএনজিতে করে রিসোর্টে চলে আসা যায়।

আমতলি নেচার রিসোর্টে কামরা বুকিংয়ের জন্য যোগাযোগ করূন

বাংলাদেশে দিন দিন ভ্রমণ শিল্প আরও উন্নতও হচ্ছে। বিগত বছর গুলোর তুলনায় বর্তমান বছর গুলোতে পর্যটক কিংবা ভ্রমণকারীর সংখ্যা বাড়ছে। তার সাথে সাথে বাড়ছে মানসম্মত রিসোর্টের চাহিদা। এই বর্ধমান চাহিদার কথা মাথায় রেখে দিন দিন বাংলাদেশে মানসম্মত নতুন নতুন রিসোর্ট তৈরি হচ্ছে। কিন্তু নতুন হতেন তৈরি হবার পরেও রিসোর্ট নির্বাচনের ক্ষ্যেত্রে  ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে ভ্রমণকারীকে। এই সমস্যা দূর করার জন্য বাংলাদেশের অন্ন্যতম শীর্ষস্থানীয় ভ্রমণ বিষয়ক ব্যাবসায় প্রতিষ্ঠান “ ট্র্যাভেল জু বাংলাদেশ লিমিটেড এবং জু ইনফোটেক বাংলাদেশ লিমিটেড ”  রিসোর্ট বুকিং সম্পর্কিত সেবা ব্যবস্থা নিয়েছে। আমাদের এই ব্যবস্থার মাধ্যমে একজন ভ্রমণকারী তার পছন্দমত রিসোর্ট বুকিং করতে পারবেন। তাছাড়া উক্ত ভ্রমণকারী তার বুকিং ক্রীত রিসোর্টের অন্য সকল সেবা সম্পর্কে সঠিক তথ্য পাবেন।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here