শ্রীপুর রবীন্দ্রনাথের উপন্যাসের জমিদার বাড়ি

535

বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ তার বিভিন্ন লেখনীতে বিভিন্ন চরিত্র এবং স্থানের কথা তুলে ধরেছেন। তাদের মধ্যে অন্যতম মাগুরার শ্রীপুরে রবীন্দ্রনাথের উপন্যাসের জমিদার বাড়ি। এই জমিদার বাড়ির প্রতি পরদে পরদে ইতিহাস লুকিয়ে আছে।

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘বউ ঠাকুরানীর হাট’ উপন্যাস অনেকেই পড়েছেন। উপন্যাসের অন্যতম চরিত্র সুরমা। আর সেই সুরমার স্মৃতিবিজড়িত জমিদার বাড়িটি আসলে মাগুরার শ্রীপুরে। এখানে জমিদারি প্রতিষ্ঠা করেন সারদা রঞ্জন পাল চৌধুরী। শ্রীপুর ও পার্শ্ববর্তী এলাকা তার জমিদারির আওতাধীন ছিল। জমিদারি পরিচালনার জন্যই বিশাল প্রাসাদতুল্য দৃষ্টিনন্দন এ বাড়ি নির্মাণ করা হয়। পনেরোশ’ শতাব্দিতে নবাব আলীবর্দী খাঁর কাছ থেকে এ অঞ্চলের জমিদারি কিনে নেন সারদা রঞ্জন পাল চৌধুরী। পরে যশোরের প্রভাবশালী রাজা প্রতাপাদিত্যের ছেলে উদয়াদিত্যের সঙ্গে বিয়ে হয় সারদা রঞ্জন পালের মেয়ে বিভা রানী পালের। তখন প্রতাপাদিত্যের সহযোগিতায় সারদা রঞ্জন নির্মাণ করেন এই জমিদার বাড়ি।

জমিদার বাড়িটি সম্পর্কে জনশ্রুতি রয়েছে। বলা হয়ে থাকে, এ বিভা রানী পাল চৌধুরীকে কেন্দ্র করে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ‘বৌঠাকুরানীর হাট’ উপন্যাস রচনা করেন। উপন্যাসে যার নাম দিয়েছেন সুরমা।

যেভাবে যাবেনঃ-

মাগুরা সদর হতে উত্তরে ১৫ কি.মি. উত্তরে শ্রীপুর উপজেলা সদরে জমিদার বাড়ী অবস্থিত। মাগুরা হতে বাসযোগে শ্রীপুর স্ট্যান্ডে নেমে ১ কি.মি. শ্রীপুর-সাচিলাপুর রাস্তায় গেলে বামপার্শ্বে জমিদার বাড়ী।