মেসার্স গুডলাক ট্রান্সপোর্ট এন্ড ট্রেডিং এজেন্সী

529

১৭৯১ সালে প্রতিষ্ঠিত ‘মেসার্স গুডলাক ট্রান্সপোর্ট এন্ড ট্রেডিং এজেন্সী’ ঢাকার পুরনো ট্রান্সপোর্ট এজেন্সীগুলোর মধ্যে একটি। আরমানিটোলায় এর প্রধান কার্যালয় অবস্থিত।

 

প্রধান অফিসের অবস্থান  ঠিকানা

আরমানিটোলা খেলার মাঠের পশ্চিম দিকে এবং আরমানিটোলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দক্ষিণ পাশে প্রধান কার্যালয়টি অবস্থিত।

ঠিকানা: ১৫, ডি.সি রায় রোড, আরামানিটোলা (বটতলা), ঢাকা- ১১০০।

ফোন- ৭৩১৪২৩০, ৭৩১৫৩১৩,

মোবাইল ফোন: ০১৭১১৬৭২১০৯, ০১৭১১৬৬০৫৫৪,

ফ্যাক্স: ৮৮০-২-৭৩১৫৬৪০,

 

সময়সূচী

শুক্রবার ছাড়া প্রতিদিন সকাল ১০টা রাত ১০টা পর্যন্ত পণ্য বুকিং দেয়া যায়।

 

ঢাকায় এদের মোট তিনটি শাখা অফিস আছে। এগুলো হল

  1. ১৪/১ নবাব কাটারা রোড (চাঁনখারপুল), ঢাকা।
  2. আমির ভবন সিমরাইল (কাঁচপুর ব্রীজের পশ্চিম পাশে) ফোন: ৭৬৯১৯১৪, মোবাইল ফোন: ০১৭১১৩৪৪৮৮০, ০১৫৫২৬৩৭২৯৩
  3. ১৬/ই কাটারা বেড়ীবাঁধ রোড।, ঢাকা। ফোন: ৭৩৪৩৫২৩ মোবাইল ফোন: ০১৭১৬৫৩৪০৬৬

 

যেসব জায়গায় এদের মাধ্যমে পণ্য প্রেরণের সুযোগ আছে

কেবল যেসব স্থানে অফিস আছে সেসব স্থানেই এদের মাধ্যমে পণ্য প্রেরণ করা যায়।

 

ক) ২৩২, নবী সুপার মার্কেট, খাতুনগঞ্জ, চট্টগ্রাম।

ফোন- ৬১১০৪০, ৬১৪৮৫৫ মোবাইল ফোন: ০১৭১১৮১১৮৩৭

খ) ডলঘাট অফিস

৪০৪, অমর চাঁদ রোড, চট্টগ্রাম। (সদরঘাট কালী বাড়ির পেছনে।)

ফোন- ৬১১০৯১, মোবাইল ফোন: ০১৭১৪-০০৩৩৩৭

গ) ব্রাঞ্চ অফিস

৫, আর.কে মিত্র রোড, নিমতলা, নারায়ণঞ্জ।

ফোন- ৭৬১৬০৫৯, মোবাইল ফোন: ০১৯১৪-২৩৮৩৫৩

 

পণ্য প্রেরণের নিয়মাবলী

পরিবহনের পুরো ভাড়াটাই অগ্রীম প্রদান করতে হয়। পণ্যের পরিবহন খরচ ওজনের ওপর নয় কেবল ধরন ও আকারের ওপর নির্ভর করে। পণ্য ওঠানো-নামানোর খরচসহ এবং সমস্ত ব্যবস্থা এজেন্সী করে থাকে। ট্রান্সপোর্ট কর্তৃপক্ষের হাতে পণ্য তুলে দিয়ে টাকা দেবার পর একটি রসিদ দেয়া হয়। ২৪ ঘন্টার মধ্যে পণ্যটি নির্ধারিত গন্তব্যে পোঁছে দেয়া হয়। শুক্রবার বাদে প্রতিদিন রাত ৯ টার পর দেশের বিভিন্ন স্থানে কভার্ড ভ্যান পণ্য নিয়ে যায়। ঢাকার ব্রাঞ্চ অফিসগুলো থেকে পণ্য ওঠানো হয়।

 

অন্যান্য সেবা

এখান থেকে ট্রাক, ভ্যান ও কাভার্ড ভ্যান ভাড়াও নেয়া যায়। দূরত্ব অনুযায়ী আলোচনা সাপেক্ষে ভাড়া নির্ধারিত হয়।

 

অন্যান্য তথ্য

  • অন্য কোন জায়গা থেকে মালামাল আনার ব্যবস্থা এখানে নেই।
  • পরিবহনকৃত পণ্যের বীমা করা হয় না।
  • পরিবহনের সময় পণ্যটি ক্ষতিগ্রস্থ হলে মালামালের মূল্যের সমান টাকা পার্টিকে প্রদান করা হয়ে থাকে। টাকা প্রাপ্তির স্থান আলোচনা সাপেক্ষে স্থির হয়ে থাকে