কুয়াকাটা এক্সপ্রেস| ট্র্যাভেল নিউজ বাংলাদেশ

890

ঢাকা থেকে বরিশাল, পটুয়াখালী ও কুয়াকাটা  রুটে যে কয়েকটি বাস চলাচল করে তার মধ্যে কুয়াকাটা এক্সপ্রেস একটি। কুয়াকাটা এক্সপ্রেস বাস সার্ভিসে কোন এসি নেই। চেয়ার সার্ভিস রয়েছে।

বাংলাদেশের বাস সার্ভিসের কুয়াকাটা এক্সপ্রেস মধ্যে অন্যতম। বাস সম্পর্কে অন্য সকল তথ্য পেতে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন।

ট্র্যাভেল জু বাংলাদেশ লিমিটেড  বা জু ইনফোটেক বাংলাদেশ লিমিটেড
রোড ৩, হোল্ডিং ৩, সুইট ৩৪,
হ্যাপি আর্কদিয়া শপিং মল,
ধানমণ্ডি,ঢাকা ১২০৫, বাংলাদেশ।
মোবাইল নাম্বার: ০১৯৭৮৫৬৯২৯০– ৯১
সকাল ১০.৩০ থেকে রাত ৮.৩০ পর্যন্ত (সপ্তাহে ৭ দিন খোলা)

 প্রধান কাউন্টারের ঠিকানা ও যোগাযোগ 

৩৩ সায়েদাবাদ, ঢাকা

 

০১৭৬১৭৮৪৩৮২; ০১৬৮২৯০৩৮১৩

 

অন্যান্য কাউন্টার সমূহ

কাউন্টারের নাম: ফোন নং-
মেসার্স এম. এন. এন্টারপ্রাইজ

বাস টার্মিনাল, পটুয়াখালী

০১৭৬১৭৮৪৩৮৭; ০৪৪১৬৫১২৪

 

কুয়াকাটা অফিস ০১৭৬১৭৮৪৩৭১
মহিপুর অফিস ০১৭৬১৭৮৪৩৭২
খেপুপাড়া অফিস ০১৭৬১৭৮৪৩৭৩
আমতলী অফিস ০১৭৬১৭৮৪৩৭৪
পটুয়াখালী অফিস ০১৭৬১৭৮৪৩৭৫; ০১৭৬১৭৮৪৩৮৫
লেবুখালী অফিস ০১৭৬১৭৮৩৭৬
বাকেরগঞ্জ ০১৭৬১৭৮৪৩৭৭
বরিশাল অফিস ০১৭৬১৭৮৪৩৭৮
বরগুনা অফিস ০১৭৬১৭৮৪৩৭৯
চান্দখালী অফিস ০১৭৬১৭৮৪৩৮০
সুবিদখালী অফিস ০১৭৬১৭৮৪৩৮১
সাভার অফিস ০১৭৬১৭৮৪৩৮৪
নবীনগর অফিস ০১৭৬১৭৮৪৩৮৬
ঢাকা সায়েদাবাদ অফিস ০১৭৬১৭৮৪৩৮২; ০১৬৮২৯০৩৮১৩
ঢাকা গাবতলী অফিস ০১৭৬১৭৮৪৩৮৩

 

ভাড়া

সায়েদাবাদ কাউন্টার থেকে অন্যান্য জেলায় যাতায়াতের ভাড়া নিচে দেওয়া হল ।

গন্তব্য ভাড়া
বরিশাল ৪৫০ টাকা।
পটুয়াখালী ৪৫০ টাকা।
কুয়াকাটা ৪৫০ টাকা।

 

বাস ছেড়ে যাওয়ার সময় সূচী

সায়েদাবাদ টার্মিনাল থেকে প্রতিদিন সন্ধা ৬:৩০ মিনিটে বাসটি ছেড়ে যায়।

 

অন্যান্য নিয়ম

  • বাস ছাড়ার অন্তত ১৫ মিনিট আগে উপস্থিত হতে হয়।
  • প্রত্যেক যাত্রী সর্বোচ্চ ১০ কেজি ওজনের মালপত্র বহন করতে পারেন।
  • অবৈধ মালপত্র বহন করা যায় না, অবৈধ মালপত্র বহন করলে কর্তৃপক্ষ কোন দায় নেয় না।
  • গাড়ীর ভেতর ধূমপান করা নিষেধ।
  • অপরিচিত লোকের দেয়া খাবার খাওয়া থেকে বিরত থাকা উচিত।
  • বাসের নিচে বক্সে যে লাগেজ রাখা হয় সেখানে লাগেজ রাখার পর টোকেনটি বুঝে নিতে হবে এবং হ্যান্ড ব্যাগ বা অন্যান্য জিনিসপত্র নিজ দায়িত্বে রাখতে হয়।
  • বিলম্বে পৌঁছানোর কারনে বাস ধরতে ব্যর্থ হলে টিকেটের টাকা ফেরত দেয়া হয় না।
  • যাত্রাপথে কোন অভিযোগ থাকলে সেটা অফিসে জানাতে হয়।
  • নামাযের সময় গাড়ী থামানো হয়। তথ্য সুত্রঃ- অনলাইন ঢাকা গাইড